সকলের জন্যে ওয়েবকে ব্যবহারোপযোগী করতে হবে

mak

0

পৃথিবীতে কয়েক কোটি ওয়েবসাইট আছে, আর রয়েছে গন্ডায় গন্ডায় ওয়েবসাইট ব্রাউজার। কিন্তু সব ওয়েবসাইট; সব ব্রাউজারে ঠিকমত আসেনা, একটিতে ঠিকমত দেখায় কিন্তু আরেকটা বা আরো কয়েকটি ঠিকমতো প্রদর্শিত হয়না আর উপকারী সুবিধাসমূহ থেকে বঞ্চিত হন ব্যবহারকারী, যাকে আমরা বলি bad user experience. ওয়েব ডেভলপার কমিউনিটি চাইলে এই ত্রুটি দূর করতে পারেন।

গত ২০ বছরে ওয়েব প্রযুক্তির ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে। ১৯৯৬ সালে কমবেশি এক মিলিয়ন ওয়েবসাইট ছিলো, আর বর্তমানে তা বেড়ে হয়েছে এক বিলিয়নেরও বেশি। তখন প্রায় ৫০ মিলিয়ন ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ছিলো; এখন তা ৩ বিলিয়ন ছাড়িয়ে যাচ্ছে। অকল্পনীয়ভাবে কনটেন্টের পরিমান বেড়েই চলেছে। পৃথিবীর মানুষ প্রায় ৮.১ বিলিয়ন ডিভাইসে কানেক্টেড রয়েছে, যার মধ্যে ২৪,০০০ প্রকার মোবাইল ডিভাইস রয়েছে।

এই কনটেন্ট, ডিভাইস আর ব্যবহারকারী সংখ্যার বিস্ফোরণে, ক্রস ব্রাউজার কমপ্যাটিবিলিটি অত্যাবশ্যকীয় হয়ে উঠছে যা ১৯৯৬ সালে হয়ত প্রয়োজন ছিলনা। স্ট্যাক ওভারফ্লোতে “cross-browser” শব্দ দুটি দিয়ে অনুসন্ধান করলে, ৫৫০০০ প্রশ্ন পাওয়া যাবে, আরো শত-সহস্র প্রশ্ন দেখা যায় এই বলে যে, “অমুক জিনিসটা, তমুক ব্রাউজারে ঠিক মত কাজ করে বা করেনা”। একটি নির্দিষ্ট ব্রাউজার, একটি নির্দিষ্ট সাইট কিভাবে হ্যান্ডেল করে, এই জাতীয় সকল প্রশ্নই আদতে কম্প্যাটিবিলিটির প্রশ্ন।

তাই cross-browser compatibiltiy আসলেই একটি জরুরী বিষয়। মজিলাতে আমরা এই বিষয়টি যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে পরোয়া করি, আর আমরা মনে করি আপনারও বিষয়টি নিয়ে ভাবা উচিত। কেনো? সত্যি বলতে কি, ব্যবহারকারীরা সম্ভবত আপনার মত একই ওয়েব ব্রাউজার ব্যবহার করে না। তাদের বিভিন্ন স্তরের প্রয়োজনীয়তা ও দক্ষতা থাকে যা আপনি হয়ত চিন্তাই করেন নাই। আপনার সাইট ব্রাউজ করার সময়, সেটি ঠিকমত প্রদর্শিত না হলে ভেঙ্গে গেলে, তারা ব্রাউজার পরিবর্তন করবে না।  সাইটের ভিজিটরদের ঠিকমত সেবা দিতে পারাটা, রীতিমত আপনার কাজের ওস্তাদি দেখানোর সামিল। সাম্প্রতিক সকল আধুনিক টুলসমূহ এই ওস্তাদি করার পাঁয়তারা অনেক সহজ করে দিয়েছে আপনার জন্য।

কি কারণে এই cross-browser incompatibilities ঘটে থাকে? বিষয়টা আসলে জটিল। নিম্নে কিছু টপ কালপ্রিটের তালিকা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে:

  • ডেভলপার যখন fallback বা অন্য ব্রাউজারের জন্য polyfill ছাড়াই, কোন নির্দিষ্ট ইফেক্ট পাবার জন্যে ব্রাউজার-স্পেসিফিক ফিচার (যেমন ভেন্ডর স্পেসিফিক prefixing) ব্যবহার করে থাকেন।
  • যেসকল ব্রাউজার নির্মাতা স্ট্যান্ডার্ডাইজ হওয়ার আগেই, শুধু ডেভলপারদের চাহিদার কারনে, নিজেদের ব্রাউজারে কোন ফিচার যুক্ত করে থাকে।
  • যেসকল ব্রাউজার নির্মাতা, স্ট্যান্ডার্ড এবং নিজেদের ব্রাউজার বাগ ফিক্স যুক্ত করতে দেরী করেন।
  • যেসকল সাইট user agent sniffing ব্যবহার করে, ভিন্ন ভিন্ন ব্রাউজারে ভিন্ন ভিন্ন কনটেন্ট উপস্থাপনার জন্যে।
  • যেসকল ডেভলপার যারা – একটানা একটিমাত্র টুলসেটের উপর নির্ভর করে (যেটি কিনা হয়তো একটি মাত্র ব্রাউজারেই সাপোর্ট করে) আর ক্রস-ব্রাউজার কম্প্যাটিবিলিটি বাগ গুলো সম্পর্কে খোঁজখবর রাখে না।
  • ইন্ডাস্ট্রির প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি পাওয়া – অতিরিক্ত চাহিদার কারণে, প্রতিদিন নতুন ডেভলপাররা আকৃষ্ট হচ্ছে আর এই ফিল্ডে যুক্ত হচ্ছে; অর্থাৎ ওভারঅল ডেভলপাররা গড়ে কম অভিজ্ঞতাসম্পন্ন, বিগতবছর গুলোর সাথে তুলনা করলে

ওয়েবের প্রথম থেকেই কিছু কিছু সমস্যা যদিও ছিলো।  কিন্তু সেই সাথে, ওয়েব ডেভলপমেন্ট সেক্টরেও প্রচুর উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। বেস্ট প্রাকটিস আর আধুনিক টুলের সমন্বয়ে আমরা সকল ব্রাউজারে চমৎকার ইউজার এক্সপেরিয়েন্স নিশ্চিত করতে পারবো।

মজিলা হ্যাকস এ প্রকাশিত একটি নিবন্ধের আংশিক ভাবানুবাদ। সম্পূর্ণ নিবন্ধটি এখানে পড়ুন: https://hacks.mozilla.org/2016/07/make-the-web-work-for-everyone/

No responses yet

Comments are closed, but trackbacks are open.